সাংবাদিক বদরুল ইসলাম মাসুদ আর নেই, নামাজে জানাজা বাদ জোহর

সাংবাদিক বদরুল ইসলাম মাসুদ আর নেই, নামাজে জানাজা বাদ জোহর
সাংবাদিক বদরুল ইসলাম মাসুদ আর নেই, নামাজে জানাজা বাদ জোহর

বিশেষ প্রতিবেদক ।।

দৈনিক আজকের পত্রিকার বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি বদরুল ইসলাম মাসুদ আর নেই। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিওন)

শনিবার (১০ ডিসেম্বর) রাত নয়টা ৪০ মিনিটে বান্দরবান সদর হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার বড় ভাই বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনু।

জানা যায়, সারাদিনের কর্ম ব্যস্ততা শেষে শনিবার রাতে বাসায় ফিরে আসার পর হঠাৎ অসুস্থতা বোধ করেন বদরুল ইসলাম মাসুদ। এসময় তাকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন।

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আজ রোববার বাদ যোহর নামাজে জানাজা শেষে চট্টগ্রামের কর্ণেলহাট সিডিএ কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

মৃত্যুকালে বদরুল ইসলাম মাসুদের বয়স হয়েছিল ৫০ বছর। তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

বদরুল ইসলাম মাসুদের জন্ম ১৯৭২ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ব্রাম্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া থানার কুমার পাড়া গ্রামে। তার পিতার নাম মরহুম মোহাম্মদ উল্লাহ ও মাতার নাম মরহুম বদরুন্নেছা। তিনি ৪ ভাই ও ৩ বোনের মধ্যে তৃতীয়। দীর্ঘ দিন তিনি পরিবারসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের বান্দরবানে বসবাস করে আসছিলেন। নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি সময়ে তিনি দৈনিক যুগরবিতে সাংবাদিকতা শুরু করেন।

পরবর্তীতে তিনি দৈনিক মৈত্রী, দৈনিক সংবাদে কাজ করেছেন। ছিলেন দৈনিক ভোরের কাগজেও। সেখানে দীর্ঘ দিন কাজ করার পর তিনি প্রথম আলোর কন্ট্রিব্রিউটর হিসেবে যোগদান করেন। পরে দৈনিক সমকালে কাজ শুরু করেন। ছিলেন চট্টগ্রামের আঞ্চলিক দৈনিক সাঙ্গু ও দৈনিক প্রিয় চট্টগ্রাম’র যুগ্ম সম্পাদক। সর্বশেষ তিনি দৈনিক আজকের পত্রিকায় বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। একইসাথে তিনি চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য ছিলেন।

দীর্ঘ ২৫ বছর সাংবাদিকতা পেশায় নিয়োজিত থাকার পাশাপাশি বদরুল ইসলাম মাসুদ অসংখ্য কবিতা ও গদ্য লিখেছেন। পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীদের নিয়ে তার লেখা “পাহাড়ের জীবনচিত্র” নামক একটি গবেষণাধর্মী বই রয়েছে।

তার ভাই মনিরুল ইসলাম মনু বান্দরবান প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি, কালের কণ্ঠের স্টাফ রিপোর্টার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি। তার আরেক ভাই এমরানুল ইসলাম মুকুল দৈনিক আমার বার্তার সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত আছেন।

সদালাপী, সজ্জন, পরোপকারী, সৎ ও সাহসী এ কলমযোদ্ধার মৃত্যুুতে চট্টগ্রামের সাংবাদিক মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। বন্ধু-বান্ধব, কর্মস্থলের সহকর্মী, শুভকাঙ্খী, আত্মীয়-স্বজন ও বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন তার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন।

খালেদ / পোস্টকার্ড ;