আনোয়ারায় শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যার দায়ে পুত্রবধূর যাবজ্জীবন

আনোয়ারায় শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যার দায়ে পুত্রবধূর যাবজ্জীবন
আনোয়ারায় শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যার দায়ে পুত্রবধূর যাবজ্জীবন

আদালত ডেস্ক, পোস্টকার্ড।।

আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া এলাকায় ২০১৪ সালে শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যার দায়ে নাইম উদ্দিন লিজা (২৬) নামে এক নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই রায়ে আদালত তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে।

রবিবার (১০ জানুয়ারি) অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আ স ম শহীদুল্লাহ কায়সারের আদালত এ রায় দেন।

সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) রুবেল পাল বলেন, “২০১৪ সালে আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া এলাকায় শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যার দায়ে নাইম উদ্দিন লিজা নামে এক নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই রায়ে আদালত তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে।”

অ্যাডভোকেট রুবেল পাল জানান, ২০১৪ সালের ৯ সেপ্টেম্বর নিজ বাড়িতে খুন হন বরুমছড়া এলাকার সোহাগ খাতুন। এ ঘটনায় নাইম উদ্দিন লিজার বিরুদ্ধে আনোয়ারা থানায় মামলা দায়ের হয়। গ্রেফতারের পর আদালতে নাইম উদ্দিন লিজা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

লিজা জানান, প্রতিবেশী দেবর হাফিজুল ইসলাম কফিলসহ মিলে সোহাগ খাতুনকে গলাকেটে খুন করেন। ২০১৪ সালের ২০ নভেম্বর লিজার সঙ্গে তাকেও আসামি করে দুইজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। আজ রবিবার আদালত নাইম উদ্দিন লিজাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিলেও হাফিজুল ইসলাম কফিলকে খালাস দেয়।

রায়ের কপি পাওয়ার পর তারা উচ্চ আদালতে যাবেন বলে জানান।

তিনি জানান, ২০১৬ সালের ২৫ জানুয়ারি আদালত দণ্ডবিধির ৩০২ ও ৩৪ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছিল। মামলায় মোট ১২ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।